আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

কুয়াকাটা-পটুয়াখালী সড়কে খানাখন্দ, যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন

কুয়াকাটা-পটুয়াখালী মহাসড়কের আমতলীর শাখারিয়া থেকে বান্দ্রা পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার সড়কে খানাখন্দে ভরে গেছে। এতে যানবাহন চলাচলে বিগ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। খানাখন্দের কারনে প্রতিদিন দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে যাত্রীবাহী বাস ও যানবাহন। এতে পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ঘর মুখো মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ী ফিরতে সমস্যা হবে।

পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ সূত্রে জানাগেছে, পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমতলীর শাখারিয়া থেকে বান্দ্রা পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার। এ সড়কে খানাখন্দে ভরে গেছে। এতে প্রতিদিন যানবাহন চলাচলে বিগ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। এ সড়কের প্রতি দুই মিটার অন্তর অন্তর গর্ত। এ হিসেবে ওই সড়কে সহ¯্রাধীক গর্ত রয়েছে। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। প্রায়ই গর্তে পরে গাড়ী দূর্ঘটনার শিকার হয়। সংস্কার না করায় সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরেছে। গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটি খানাখন্দে ভরে থাকায় পর্যটনগামী ও পরিবহন যথাস্থানে নির্দিষ্ট সময়ে গাড়ী পৌছতে পারছে না।
মঙ্গলবার (৭ আগষ্ট) সরেজমিন ঘুরে দেখাগেছে, শাখারিয়া থেকে বান্দ্রা পর্যন্ত ৩৭ কিলোমিটার সড়কের শাখারিয়া, ব্রিকফিল্ড, কেওয়াবুনিয়া, মহিষকাটা, চুনাখালী, আমড়াগাছিয়া, ঘটখালী, তুলাতলা, একে স্কুল, বাধঘাট চৌরাস্তা, হাসপাতাল, ছুরিকাটা, মানিকঝুড়ি, খুড়িয়ার খেয়াঘাট, আকনবাড়ী, ফকিরবাড়ী, খলিয়ান ও বান্দ্রা এলাকায় খানাখন্দে ভরে গেছে। প্রতি দিন থেকে চার মিটার অন্তর অন্তর খানাখন্দ। খানাখন্দের কারনে মহাসড়কে ঠিকমত যানবাহন চলাচল করতে পারছে না।
গাজীপুর বন্দরের সোহেল রানা জানান, মহাসড়কের যে বেহাল দশা হয়েছে, তাতে যানবাহন চলাচল করা খুবই কষ্টসাধ্য। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়কে চলাচল করতে হয়। তিনি আরও জানান, অতিদ্রুত এ সড়কটি সংস্কার করা প্রয়োজন।
পথচারী মোঃ জাকির শিকদার বলেন একটি মহাসড়কের রাস্তা এভাবে খানাখন্দে ভরা থাকার কথা নয়। এতে মানুষের চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। গত দু’মাস পূর্বে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এ সড়কের খানাখন্দের সংস্কার করে। কিন্তু কাজ নি¤œ মানের হওয়ায় ওইখানাখন্দ উঠে গিয়ে পুনরায় খানাদন্দের সৃষ্টি হয়েছে।
আমতলীর অটো রিকসা চালক মাসুম বয়াতি বলেন গর্তে ভরা এ সড়কটি দিয়ে চলাচল করতে সমস্যা হয়।
স্বর্ণা এন্টারপ্রাইজ বাস গাড়ীর চালক মজিবর রহমান জানান, মহাসড়ক খানাখন্দে ভরা। এ সড়ক দিয়ে গাড়ী চালাতে সমস্যা হচ্ছে।
মৃধা এন্টারপ্রাইজ বাস মালিক মোঃ হাসান মৃধা বলেন পুরা মহাসড়কটি খানাখন্দে ভরে আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সংস্কার করছে না। তিনি আরও জানান সড়কটি দ্রুত সংস্কার করা না হলে যান চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়বে।
পটুয়াখালী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকেীশলী মীর নিজাম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এ সড়কের দরপত্র আহবান করা হয়েছে। শীঘ্রই কাজ শুরু হবে। তিনি আরও বলেন, যানবাহন চলাচলের উপযোগী করার জন্য সড়কের সকল খানাখন্দ মেরামত করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: