আজ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

প্রধানমন্ত্রীর সবই মিথ্যা: মান্না

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য, তার কাজ আর উন্নয়নের দাবি-সবই মিথ্যা বলে দাবি করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তার অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী কেবল ‘জাতির সাথে প্রতারণা আর ভণ্ডামো করেন।’

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগে অবস্থান হারিয়ে দলের কট্টর সমালোচক হয়ে উঠা এই নেতা।

‘কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিপীড়িত শিক্ষার্থীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ এবং আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এ আলোচনার আয়োজন করে নাগরিক ঐক্য।

শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রধানমন্ত্রীর জনসভার কথা উল্লেখ করে মান্না বলেন, ‘ওনি (প্রধানমন্ত্রী) আবার বলেন, ‘আমার সংবর্ধনার দরকার নেই।’ তাহলে এতকিছুর আয়োজন কেন? যেখানে ওনার কথা ছাড়া একটা গাছের পাতাও নড়ে না। সেখানে এসব বলার তো দরার নেই।’

‘ওনি নাকি এসব জনগণকে উৎসর্গ করেছেন। চার বছর আগে ভোটে জিতেছেন? সব প্রতারণা, ভণ্ডামো। এসব কিছুর অবসান করতে হবে।’

এমডিজি ও এসডিজি বাস্তবায়নে সাফল্যের জন্য বাংলাদেশকে উন্নয়নের মডেল উল্লেখ করে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার যে প্রশংসা নিয়মিত তুলে ধরছে সরকার, সেটিকেও ‘মিথ্যা’ বলেন মান্না। বলেন, ‘উন্নয়নের নাকি বাংলাদেশে রোল মডেল, এগুলো সবই মিথ্যাচার।’

উন্নয়নের নামে লুটপাট হচ্ছে অভিযোগ করে মান্না বলেন, ‘পদ্মা সেতুতে ১০ হাজার কোটি টাকা থেকে শুরু করে এখন ৪০ হাজারে গিয়ে ঠেকেছে। যেখানে ভুপেন হাজারিকায় কত কম খরচে সেতু হচ্ছে। এই পদ্মা সেতুর শেষ পর্যন্ত ৫০ হাজারে গিয়ে ঠেকবে।’

সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলে বাধা হিসেবে উচ্চ আদালতের রায়ের কথা উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। মান্নার দাবি, এটাও মিথ্যা। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে হাইকোর্টের কোনো আদেশ নাই, তিনি মিথ্যাচার করছেন।’

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্বাস করা ‘শতভাগ ভুল’ ছিল বলেও উল্লেখ করেন মান্না। বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ম্যাকিয়েভেল প্রিন্সের মডার্ন সংস্করণ। তার কথা বিশ্বাস না করলে, প্রধানমন্ত্রী সমস্ত দাবি মেনে নিত।’

কোটা আন্দোলনকারীদের আবার আন্দোলনে নামার আহ্বান জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের নেতা বলেন, ‘যেভাবে ছেলেদের মারা হচ্ছে, হাড় গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এগুলোর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। মার হজম করা যাবে না। ঘুরে দাঁড়াতে হবে এবং সবাইকে সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

‘সারা দেশের ছাত্ররা নেমে আসলে কোটা সংস্কার বৈষম্যের অবসান হবে, আমরা বৈষম্যের অবসান চাই।’

সবাইকে কথা বলতে দিতে হবে

এটা ভোটের বছর হলে, সবাইকে ‘কথা বলতে’ দেয়ার দাবি জানান মান্না। বলেন, ‘আর কেউ কথা বলবে না, আপনারাই একাই বলবেন?’

‘অন্যদের আটকাতে পারবেন না বলেই কথা বলতে দেয়া হয় না, বিরোধী মতকে আটকানো হয়।’

নির্বাচনে খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করারও দাবি জানান মান্না। বলেন, ‘সামনে ভোট আসছে, সেখানে সবাই বলছে অংশগহণমূল নির্বাচন চায়। কিন্তু খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে কি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে? হবে না।’

নাগরিক ঐক্যের নেতা বলেন, ‘অবস্থান এখন এমন যে, যাই হোক শেখ হাসিনাই ক্ষমতায় থাকবে। কেউ তার সাথে পারছে না, এমন একটি অবস্থা সৃষ্টি করেছে।’

‘প্রধান বিচারপতিকে কীভাবে ‘হেনস্তা’ করলেন! প্রধান বিরোধীদলের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে ঢুকালেন, আর বের হতে পারবে না।’

‘মানুষ মুখ খুলছে না, তার কাছে নতি স্বীকার করেছে। এই যখন অবস্থা তখন কোটা আন্দোলনের নেতারা সাহস দেখিয়েছে। তাদের এখন রাজাকার ধুয়া তুলছে, সবাই রাজাকার হলে, তুমি কে?’ এমন প্রশ্ন রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক।

মান্না বলেন, ‘তারা (আওয়ামী লীগ) জানে, মাথা নত করতে হবে ক্ষমতা ছেড়ে দিলে। রক্তের গঙ্গা বয়ে যাবে। সেটা তো ওবায়দুল কাদের সাহেব বলে দিয়েছেন। এজন্য গদি ছাড়া যাবে না, ক্ষমতা ছাড়া যাবে না। চলমান এই সমস্যার একমাত্র সমাধান ক্ষমতাসীনদের গদি ছাড়তে হবে।’

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আসিফ নজরুল, কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক মোজাম্মেল মিয়াজী প্রমুখ এ সময় বক্তব্য দেন।

One response to “প্রধানমন্ত্রীর সবই মিথ্যা: মান্না”

  1. fantastic post, very informative. I ponder why the other specialists of this sector don’t realize this.
    You should proceed your writing. I’m sure, you have a great readers’ base already!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: