আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

৬ষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে বেদম পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে শিক্ষক

লালমনিরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন ৬ষ্ঠ শ্রেণী ক্লাসের ফাস্টবয় এক শিক্ষার্থীকে বেদম পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সিলভী।

বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) এ ঘটনায় অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সিলভীর নামে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন শিক্ষার্থীর বাবা ডাঃ নবিউর রহমান।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকাল ৩টায়’ ৬ষ্ঠ শ্রেণির ইংরেজি ক্লাস চলছিল। এ সময় খাতায় লিখতে গিয়ে শিক্ষার্থী শাকির আব্দল্লাহসহ আরও কয়েকজনের হাতে কলমের কালির দাগ লেগে যায়। এ সময় ইংরেজি শিক্ষক শাজাহান আলী তাদেরকে বাইরে গিয়ে হাত ধুয়ে আসতে বলেন।
শিক্ষকের অনুমতি পেয়ে শাকিরসহ অন্যরা হাত ধোয়ার জন্য ২য় তলা থেকে নিচে নামতে থাকে। এ সময় হঠাৎই পেছন থেকে এসে শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সিলভী লাঠি হাতে নিয়ে শিক্ষার্থীদের মারতে উদ্যত হয়। ফলে শাকিরসহ অন্যরা দৌড়ে গিয়ে ২য় তলায় উঠে তাদের ক্লাস রুমে প্রবেশ করে। কিন্তু রফিকুল ইসলাম সিলভীও দৌড়ে ওই শ্রেণি কক্ষে প্রবেশ করে শাকিরকে মারতে থাকে।
স্কুলছাত্র শাকির জানায়, মোটা একটি লাঠি দিয়ে তাকে বেদম পিটিয়েছে শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সিলভী। সে কারণে বর্তমানে ব্যাথায় তার পা ফুলে গেছে, সে স্কুলে যেতে পারছে না।
আহত শাকিরের বাবা ডা. নাবিউর রহমান বলেন, আমার ছেলে শুধু ক্লাসের ফাস্টবয় নয়, সে খুবই বিনয়ী একজন ছাত্র। এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার ও সেই শিক্ষকের শাস্তি দাবী করেন।
ঘটনার দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকা শিক্ষক শাজাহান আলী শিপন বলেন, কোন কিছু বুঝে উটার আগেই এমন একটি ঘটনা ঘটবে তা তিনি কল্পনাও করেননি। আসলে সেদিন ছাত্রদের কোন দোষ ছিল না। এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।
অভিযুক্ত শিক্ষক রফিকুল ইসলাম সিলভীর সাথে কথা বলতে তার মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভব শংকর বর্মা বলেন, এ বিষয়ে আমার কাছে একটি অভিযোগ এসেছে। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, যেহেতু এটি একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাই এ বিষয়ে পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ করেন।
বিদ্যালয়ের সভাপতি লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ জানান, শিক্ষার্থীর অভিভাবকের দেয়া একটি অভিযোগ পেয়েছেন, এখনো দেখা হয়নি। দেখে, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments are closed.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: