আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

দুর্নীতিবাজদের বাঁচাতেই তথাকথিত জাতীয় ঐক্য জোট করা হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

দুর্নীতিবাজদের বাঁচাতেই তথাকথিত জাতীয় ঐক্য জোট করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘সরকারের পতন ঘটনোর জন্যেই দুর্নীতিবাজরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। জনগণ যদি তাদের খুশি হয়ে ভোট দেয়, আমার কিছু আসে যায় না।’

গতকাল রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের হিলটন মিড টাউন হোটেলে প্রবাসীদের দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছেন, ‘সকলের হাতে ট্যাব-মোবাইল আছে। এর যেমন ভালো দিক আছে তেমন খারাপ দিকও আছে। আর সেটা নিয়ন্ত্রণ করার জন্যই ইতিমধ্যে আমরা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশ করিয়েছি।’
এ সময় তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘তাদের বিরুদ্ধে তো কিছু করা হচ্ছে না। এতে সাংবাদিকদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই।’
নিজেদের অপকর্মের শাস্তি পাচ্ছে বিএনপি-এ কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আদালতে নিজেদের নিরাপরাধ প্রমাণ করাও তাদেরই দায়িত্ব। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে তো মামলা আমি দিইনি। দিয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। তার আপনজন।’
জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক অবস্থান করছেন প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্যোগে জাতিসংঘের স্থায়ী মিশনের গ্লোবাল কল টু অ্যাকশন অন ড্রাগ প্রবলেম’শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ে বৈঠকে যোগ দেবেন তিনি। বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ৯টায় অনুষ্ঠিত হবে এই সভা।
পরে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাই কমিশনারের আয়োজনে ‘গ্লোবাল কমপ্যাক্ট অন রিফিউজিস: এ মডেল ফর গ্রেটার সলিডারিটি অ্যান্ড কোঅপারেশন’ শীর্ষক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া দুপুরে ইউএস চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত একটি রাউন্ড টেবিল আলোচনায় অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে তার।
২৫ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের নিরস্ত্রীকরণবিষয়ক কার্যালয়ের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত সাইবার সিকিউরিটি ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতাবিষয়ক একটি উচ্চপর্যায়ের সভায় বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
এ ছাড়াও জাতিসংঘ মহাসচিবের আয়োজনে তার অ্যাকশন ফর পিস কিপিং-বিষয়ক উচ্চপর্যায়ের সভায় অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে। শান্তিরক্ষাবিষয়ক ওই ইভেন্টে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের শান্তিরক্ষা সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ক্রমাগত উন্নতির বিষয়গুলো তুলে ধরবেন। একই দিন তিনি ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের চতুর্থ শিল্পবিপ্লব সম্পর্কিত একটি প্যানেলে যোগ দেবেন।
২৬ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক উচ্চপর্যায়ের সভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।
পরদিন ২৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সাধারণ বিতর্ক অধিবেশনে বাংলায় ভাষণ দেবেন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশ্বনেতাদের সম্পৃক্ত করতে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য তুলে ধরবেন তিনি। ওই দিন সকালে লিথুনিয়ার প্রেসিডেন্ট আয়োজিত ‘নারীর ক্ষমতায়নের মাধ্যমে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন’ বিষয়ক সাইড ইভেন্টে ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে তার।

Comments are closed.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: