আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

খুলনায় দুই কিশোরের লাশ উদ্বার এবং এক কিশোরীর আত্মহত্যা

খুলনায় পৃথক দুটি স্থান থেকে মুছা শিকদার (১৫) ও শামীম শেখ (১৫) নামের দুই কিশোরে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রূপসা উপজেলার আলাইপুর গ্রামের আঠারোবাকী নদী থেকে মুছার ও দুপুর ১২টার দিকে চাঁদপুর গ্রামের শিয়ালী নদীর পার্শ্ববর্তী হোগলা বন থেকে ভ্যান চালক শামীম শেখের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এছাড়া ফারজানা খাতুন (১৫) নামে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।
নিহত মুছা শিকদার রূপসা উপজেলার আলাইপুর গ্রামের মোস্তাকিন শিকদারের ছেলে ও শামীম শেখ তেরখাদা উপজেলার আড়কান্দি গ্রামের মধ্যপাড়ার ভ্যানচালক ঝড় শেখের ছেলে এবং ফারজানা রূপসা উপজেলার জয়পুর গ্রামের ইউনুস শিকদারের মেয়ে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, রূপসা উপজেলার আলাইপুর গ্রামের মুছা শিকদার উপজেলা সদরের একটি মাদ্রাসায় পড়ালেখা করত। এক বছর আগে তাকে তার পিতা মোস্তাকিন শিকদার আলাইপুর গ্রামের দক্ষিণপাড়ায় বাড়ির পাশে একটি মুদি দোকান করে দেয়। তারপর থেকে সে ওই দোকানে ব্যবসা করত। দোকানদারি শেষে রাতে সে দোকানের ভেতরেই ঘুমাতো। গত বুধবার রাত ১১টার দিকে বাড়ি থেকে রাতের ভাত খেয়ে সে দোকানে ঘুমাতে যায়। এ সময় ৫/৬জন ব্যক্তি তার দোকানে যায়।
বৃহস্পতিবার সকালে তার পিতা দোকানে গিয়ে দেখতে পায় দোকান বাইরে থেকে তালা মারা। তিনি বাড়ি থেকে আরেকটি চাবি এনে দোকান খুলে দেখতে পান দোকানের মধ্যে মুছা নেই। তখন ঘটনাটি মুছার পিতা মোস্তাকিন শিকদার তার ভাইকে জানান। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে এলাকাবাসী দেখতে পায় মুছার বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে আঠারোবাকী নদীতে তার লাশ ভাসছে। খবর পেয়ে রূপসা থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।
এদিকে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে রূপসা উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের শিয়ালী নদীর পার্শ্ববর্তী হোগলা বন থেকে পুলিশ ভ্যান চালক শামীম শেখের লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ জানায়, গত ৫ সেপ্টেম্বর সকালে শামীম শেখ বাড়ি থেকে বের হয়। তারপর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। আজ সকালে স্থানীয় একজন কৃষক শিয়ালী নদীর হোগলা বনে গরুর খাবারের জন্য ঘাস কাটতে যায়। এ সময় সে দুর্গন্ধ পেয়ে এগিয়ে গিয়ে নদীর পাড়ে বনের মধ্যে একজনের লাশ মাটিতে পোতা ও পা উপরের দিকে দেখতে পায়। ওই কৃষকের চিৎকারে এলাকাবাসী এসে লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায়।
দুপুর ১২টার দিকে রূপসা থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। পরে নিহত শামীমের জামা-কাপড় দেখে তার পিতা ঝড় শেখ ও মা সুরভী বেগম তার লাশ সনাক্ত করেন।
অপরদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে রূপসা উপজেলার জয়পুর গ্রামে ফারজানা খাতুন (১২) নামে অষ্টম শ্রেণির এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। নিহত ফারজানা স্থানীয় নৈহাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী।
এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, জয়পুর গ্রামের ইউনুস শিকদারের সঙ্গে তার স্ত্রী সফুরা বেগমের তালাক হয়ে যাওয়ার পর ফারজানা তার মায়ের সঙ্গে বসবাস করত। ফারজানার মা সফুরা বেগম রূপসা ঘাট সংলগ্ন একটি ডকইয়ার্ডে শ্রমিকের কাজ করেন।
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাড়ির কাজকর্ম নিয়ে সফুরা তার মেয়ে ফারজানার সঙ্গে রাগারাগি করেন। পরে তিনি কাজের উদ্দেশ্যে ডকইয়ার্ডে চলে গেলে ফারজানা ঘরের আড়ার সঙ্গে নিজের ওড়না বেধে গলায় ফাঁস দেয়। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, রূপসা থানার দুটি পৃথক স্থান থেকে দুইজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া একজন স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: