আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

করোনায় দরকার মানসিক শক্তি

করোনার বিস্তার নিয়ে প্রতি মূহূর্তে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসছে দু:সংবাদ। আমরা ঘরে বসে নিরাপদ থাকার চেষ্টা করছি। আর সব দায় সরকারের উপর ছেড়ে দিয়েছি। সরকার প্রধান আওয়ামী লীগ সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দৃঢ়তার সঙ্গে মোকাবেলার চেষ্টা করছেন। জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন, চিকিৎসক, কেউ বসে নেই। যার যার জায়গা থেকে কাজ করছেন। আর আমাদের কেউ কেউ মাঠ পর্যায়ে কিছু ভুল-ত্রুটি নিয়ে বিদ্রুপ আর রম্য রচনাও কম করছি না। সামাজিক মাধ্যমে সবাই বিশেষজ্ঞ বনে গেছেন। যে যার যার মতো পরামর্শ দিচ্ছেন। কিছু-কিছু মন্তব্য আবোল-তাবোল প্রলাপই বলতে হবে।

আমরা ভুলে যাচ্ছি- যে কোনো সংকট বা দুর্যোগের সময় দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানো কর্তব্যের মধ্যেই পড়ে। সব যে একসঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে, ব্যাপারটা এমন নয়। করোনায় সতর্ক হওয়ার চেয়ে বেশিরভাগ মানুষ আতংকিত হয়ে পড়েছে। একারণে আক্রান্তের কোনো একটি উপসর্গ বুঝতে পাওয়া মাত্রই কেউ হাসপাতাল থেকে, কেউ আবার বাড়ি থেকে পালিয়ে যাচ্ছেন। এতে তারা করোনাভাইরাস আরো মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছেন। অথচ বাসায় থেকে কিম্বা হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ জীবন লাভ করা সম্ভব। অন্যরাও নিরাপদ থাকতে পারি।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নয়, এমন অনেকেই সাধারণ সর্দি-জ্বর নিয়েও পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। এতে একটি বিষয় পরিস্কার আমাদের মানসিক শক্তির অভাব। এই জায়গায় আমরা একেবারেই কাজ করছি না। মানুষের মানসিক শক্তি বাড়াতে হবে। এরজন্যে সবাইকে কাজ করতে হবে। আমরা সবকিছু নিয়ে বিশেষজ্ঞ না হয়ে বা অধিক সমালোচনা না করে ঘরে বসেই সামাজিক মাধ্যমে মানুষের মনোবল বাড়াতে কাজ করতে পারি। যা আমাদের সবার জন্যেই মঙ্গল বয়ে আনতে পারে।

লম্বা সময় ঘরে বসে থেকে অনেকেই অবসাদগ্রস্ত ও অস্থির হয়ে পড়ছেন। এতে মনের শক্তি নি:শেষ হয়ে যাচ্ছে। আমরা দুর্যোগ বা সংকট মোকাবেলায় নিজেকে প্রস্তুত করতে পারছি না। ভয়-আতংক এমনভাবে ভর করেছে, স্বাভাবিক কাজ-কর্মও ব্যাহত হচ্ছে। এর উপর যদি করোনার কোনো উপসর্গ দেখা দেয়। যে কেউই মৃতপ্রায় হয়ে পড়বে। তাদের মানসিক শক্তি বাড়ানো খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে। অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ার পেছনে শুধু একটি দু্টি কারণ নেই। অনেকগুলো কারণ রয়েছে। কেউ প্রবাস থেকে ফিরে স্বাভাবিক জীবনে বাধা পাচ্ছেন, কেউ চাকরি হারিয়েছেন, কারো রোজগার বন্ধ, কারো খাবার সংকট, বাসা ভাড়া পরিশোধের চিন্তা, পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া, এরকম অসংখ্য কারণে মানসিক শক্তি হারিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

সবাই শক্ত মনের মানুষ হতে চান। কিন্তু চিন্তাধারা, অনুভূতি এবং আচরণ বদলে মনটাকে আরো বেশি শক্তিশালী করতে চেয়েও পারছেন না। নানা ভুল ধারণা মানসিক শক্তি বৃদ্ধির পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সেখান থেকে বের করে আনা সম্ভব হলে যে কোনো মানুষের পক্ষে করোনা সংকট মনের জোরে উৎরাতে সম্ভব। আমরা যদি মরার আগেই মরে যায়, তার দায় কে নেবে। পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র কেউ নেবে না। তাই ওইসব মানুষকে আমাদের জাগাতে হবে। তারা যেন মানসিক শক্তিতে বলিয়ান হয়ে ওঠেন। এতে তারাও বাঁচবে। বাঁচবো আমরাও।

 

লেখক: সাংবাদিক রনজক রিজভী

Comments are closed.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: