আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জুন, ২০২১ ইং

না ফেরার দেশে চলে গেলেন ঠাকুরগাঁওয়ের খান সাহেব – রেখে গেলেন তার স্মৃতি কথা

মুক্তিযুদ্ধের চিত্র ধারণকারী দুঃসাহসিক ফটোগ্রাফার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আজহারুল ইসলাম খান বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন)।

১৯ আগষ্ট রোজ রোববার সকাল ১০টায় ঠাকুরগাঁও শহরের সরকারপাড়াস্থ তার নিজ বাসায় বার্ধক্যজনিত কারণে তিনি ইন্তেকাল করেন।

রোববার বাদ আছর সরকারপাড়া টিএনটি মাঠে বীর মুক্তিযোদ্ধা আজহারুল ইসলাম খানকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড ওফ অনার প্রদান করা হয়। বাদ মাগরিব মরহুমের নামাজে জানাজা ও দাফন কার্য শহরের মুন্সিপাড়া গোরস্থানে সম্পন্ন হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আজহারুল ইসলাম খান দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, তিন মেয়ে, আত্মীয়-স্বজনসহ অসখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৩২ সালে সিরাজগঞ্জ জেলার সোয়াধানগড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন আজহারুল ইসলাম খান। তার বাবার নাম হোসেন উদ্দিন। ১৯৬০ সালে ঠাকুরগাঁও শহরে আসেন তিনি। এরপর তিনি এখানেই ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে মির্জা রুহুল আমিনের (মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বাবা) উৎসাহে ১৯৬৫ সালে শহরের প্রাণকেন্দ্রে ছবি ঘর নামে একটি স্টুডিও চালু করেন তিনি। ওই সময় ঠাকুরগাঁওয়ের একমাত্র ফটোগ্রাফার হলেন আজহারুল ইসলাম খান। তখন ঠাকুরগাঁওয়ের সাংবাদিকদের ছবির চাহিদা পূরণ করতেন তিনি। এরপর ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: