আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ভারতে পাচার হওয়া কিশোরী এখন দেশে

ভারতে পাচার হওয়া এক কিশোরীকে (১৪) গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে ফেরত আনা হয়েছে। গত বছরের শুরুতে মেয়েটিকে ভারতে পাচার করেছিল তারই খালু। কিশোরীর বাড়ি খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলায়। তাকে ভারতে পাচারের অভিযোগে গত বছরের ১৯ মার্চ হরিণটানা থানায় মামলা করেন তার মা। ওই মামলায় বর্তমানে মেয়েটির খালু ও তার সহযোগী মো. ইসমাইল সরদার কারাগারে রয়েছেন।

মেয়েটিকে দেশে ফেরত আনতে বড় ভূমিকা পালন করেছে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ পরিচালিত ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার। বৃহস্পতিবার দুপুরে উদ্ধার হওয়া কিশোরীকে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে তারা। সেখানে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হুমায়ুন কবির বলেন, মেয়েটিকে কাজ দেওয়ার কথা বলে ভারতে নিয়ে দালালদের কাছে বিক্রি করে দেন ইসমাইল। দালালেরা তাকে গুজরাটে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে দিয়ে অনৈতিক কাজ করানো হয়। প্রায় তিন মাস দালালদের কাছে আটক থাকার পর মেয়েটিকে উদ্ধার করে গুজরাটের পুলিশ। তারা মেয়েটিকে ঝুনাগড় এলাকার ‘শিশু মঙ্গল অরফানেজ’ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে হস্তান্তর করে। এক বছরের বেশি সময় চেষ্টার পর মেয়েটিকে সেখান থেকে দেশে ফেরত আনা সম্ভব হয়েছে।

মেয়েটির মা বলেন, ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে তাঁর মেয়েকে খালার বাড়ি নিয়ে যান ইসমাইল। সেখান থেকে আর বাড়ি ফিরে আসেনি সে। পরে ইসমাইলের কাছে জানতে চাইলে তিনি কিছু জানেন না বলে জানান। কিছুদিন পর ভারত থেকে ফোন করে তার মেয়ে। তার খালু তাকে কলকাতায় নিয়ে গেছে বলে জানায় সে। এরপর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় তিনি হরিণটানা থানায় মামলা করেন। মামলায় মেয়ের খালু ও ইসমাইলকে আসামি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: