আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

লালমনিরহাটে যৌতুকের জন্য গৃহবধুকে হত্যা! গ্রেফতার-১

১০ আগস্ট রাতে লালমনিরহাট সদর উপজেলায় যৌতুকের দাবীকৃত টাকা না পাওয়ায় আদুরী রানী রায় নামে এক গৃহবধুকে গলাটিপে হত্যা করেছে স্বামী ও  শশুরবাড়ীর লোকজন।
নিহতের স্বামীর ভাড়া বাড়ি শহরের জেল রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে শুক্রবার রাতেই সবুজ কুমার রায় (১৮) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। সবুজ সদর উপজেলার রাজপুর ইউনিয়নের বিধুভূষন রায়ের ছেলে।

মামলা সুত্রে জানা যায়, চলতি বছরের গত ২৬ জুন তাপস তুমার রায়ের সাথে কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার রথিরাম গ্রামের হেমন্ত কুমার রায়ের মেয়ে আদুরীর বিয়ে হয়। মেহেদীর রং না শুকাতেই ২লাখ টাকা যৌতুকের দাবী করে আদুরীর স্বামী ও শশুরবাড়ীর লোকজন। যৌতুকের দাবীকৃত টাকা না পেয়ে গৃহবধু আদুরীর উপর শুরু হয় শারীরিক নির্যাতন। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে গত ১৭ জুলাই বাবা হেমন্ত রায় জামাতা তাপসের হাতে ১লাখ টাকা তুলে দেন। যৌতুক লোভী স্বামী দাবীকৃত বাকী ১লাখ টাকার জন্য নির্যাতনের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়। এক পর্যায়ে গত শুক্রবার রাতে গৃহবধু আদুরীকে বেধরক মার পিট করে এবং গলাটিপে হত্যা নিশ্চিত করে।
এদিকে হত্যার পর লাশ নিয়ে বিপাকে পড়ে শশুরবাড়ির লোকজন। পরে রাত গভীর হলে কৌশলে অসুস্থ্যতার কথা বলে লাশ জনৈক্য ড্রাইভার এশাদুলের ভাড়া মাইক্রো বাসে তুলে আসামী সবুজ কুমারসহ হাসপাতালের দিকে রওনা দেয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে ওই ড্রাইভার মাইক্রো বাসটি হাসপাতালে না নিয়ে থানার ভিতরে ঢুকিয়ে দেয় এবং আসামী সবুজ কুমারকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়। ১১ জুলাই শনিবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে বিকালে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর পরে পুলিশ।

এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি মাহফুজ আলম জানান, গৃহবধু আদুরী নিহতের ঘটনায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে। সবুজ কুমার নামে এক আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: