আজ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

নির্বাচন কমিশন নিজেই স্বপদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন : আমীর, ইসলামী আন্দোলন

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনের বক্তব্য “ভোটে অনিয়ম হবে না- এমন নিশ্চয়তা দেওয়া যাবে না” তার এমন বক্তবের পর তাঁর ঐ পদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব হলো একটি গ্রহণযোগ্য, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করা। কিন্তু তিনি তা না করে দলীয় তল্পিবাহকের ভূমিকা পালন করে এখন বলছেন ভোটে অনিয়ম হবে না, এমন নিশ্চয়তা দেওয়া যাবে না। তার এই বক্তব্যের পর নির্বাচন কমিশনের মত একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংবিধানিক পদে থাকার নৈতিক অধিকার নেই।

পীর সাহেব বলেন, বর্তমান কমিশন অযোগ্য ও ব্যর্থ। তার উপর দেশবাসীর কোন আস্থা নেই। বিগত নির্বাচনগুলোতে সীমাহীন ভোটডাকাতি, কেন্দ্র দখল, ভোটারদের ভোট দিতে না দেওয়াসহ যে অনিয়ম দেশবাসি প্রত্যক্ষ করেছে তাতে এ নির্বাচন কমিশনের প্রতি ভোটারদের আস্থা নেই।

পীর সাহেব চরমোনাই আরও বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে কোন নির্বাচনই সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হতে পারে না তার প্রমাণ বিগত ৩০ জুলাই বরিশালসহ তিন সিটি নির্বাচন। কাজেই দলনিরপেক্ষ সরকারের অধীে জাতীয় নির্বাচন হতে হবে এর কোন বিকল্প নেই

বুধবার (৮ আগস্ট’১৮) বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশর প্রেসিডিয়ামের এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম, অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, ডা. মুখতার হোসাইন, আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী।

One response to “নির্বাচন কমিশন নিজেই স্বপদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন : আমীর, ইসলামী আন্দোলন”

  1. I’ve been exploring for a little bit for any high-quality articles or blog posts in this kind of area .
    Exploring in Yahoo I eventually stumbled upon this website.
    Reading this info So i’m glad to convey that I have an incredibly
    just right uncanny feeling I discovered just what I needed.

    I most definitely will make certain to don?t put out of your mind
    this site and provides it a look regularly.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap
%d bloggers like this: